অসুস্থ মাকে বুকে জড়িয়ে ফেরিতে পদ্মা পাড়ি

মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ৩নং ফেরিঘাট থেকে বাংলাবাজারের উদ্দেশে ছেড়ে যেতে সব প্রস্তুতি নেয়া শেষ ফেরি রানীগঞ্জের। পন্টুনে থাকা সব যাত্রীরা উঠে পড়েছেন ফেরিতে। এসময় পন্টুনের অ্যাপ্রোচ সড়কে দেখা যায় মধ্যবয়স্ক এক ব্যক্তিকে। তার বাম হাতে রয়েছে ব্যাগ আর ডান হাতে কোলে নিয়ে আছেন অসুস্থ মাকে।

পরে অন্য যাত্রীদের সহায়তায় কোনোমতে মাকে নিয়ে ওঠেন ফেরিতে। সেখানে দেখা দেয় আরেক বিপত্তি। দাঁড়িয়ে থাকতে পারেন না অসুস্থ মা। মানুষের চাপে ফেরিতে নেই তাকে শুইয়ে দেয়ার জায়গাও। উপায় না পেয়ে মাকে কোলে নিয়েই রাখেন ছেলে।

এসময় ছেলের চোখে ছিল অসহায়ত্বের ছাপ আর মায়ের মুখে ফুটে ওঠে নির্ভরতার ছায়া। এভাবেই ফেরিতে পদ্মা পাড়ি দিতে দেখা যায় মা ও ছেলেকে।

রোববার (২৭ জুন) সকাল সাড়ে ৯টায় লকডাউনকে কেন্দ্র করে ঘরমুখো মানুষদের ভিড়ে এমন চিত্র দেখা যায় শিমুলিয়া ৩নং ফেরিঘাটে।

ফেরি ছেড়ে দেয়ার আগে মধ্য বয়স্ক ছেলে বলেন, ‘জন্মের পর থেকে আমাকে পেলে বড় করেছেন মা। তার জন্যই পৃথিবীতে এসেছি। মা অসুস্থ হওয়ায় হাঁটতে পারেন না। গ্রামে নিয়ে যাচ্ছি। দোয়া করবেন ভাই।’

এদিকে রোববার ভোর থেকে লকডাউনের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে দক্ষিণবঙ্গগামী মানুষের ঢল নামে মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাটে। এছাড়া করোনা সংক্রমণ রোধে বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) থেকে দেশব্যাপী সাতদিনের বিধিনিষেধকে কেন্দ্র করে বুধবারও (৩০ জুন) মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়াঘাটে ঘরমুখো মানুষের চাপ দেখা যায়।