করোনা মহামারিতে রোজা রাখা সম্পূর্ণ নিরাপদ: গবেষণা

মহামারি করোনা ভাইরাসে পুরো পৃথিবী স্তব্ধ। করোনার মাঝেই গেল বছর রমজান মাস পালন করেছে বিশ্বের মুসলিম ধর্মাবলম্বীরা। আবারও আসছে রমজান মাস। এদিকে নতুন এক গবেষণা প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে যুক্তরাজ্যে রমজানের উপবাসের ফলে মুসলিম'দের মধ্যে করোনাভাইরাসে মৃ'ত্যুর হার বৃদ্ধি পায়নি ।

বৃহস্পতিবার বৈশ্'বিক স্বাস্থ্যবি'ষয়ক পিয়ার-রিভিউড সাময়িকী গ্লোবাল হেলথে এই প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।এতে বলা হয়, গত বছর পবিত্র রমজান পালনকারী ব্রিটেনের মুসলিম'দের করোনাভাইরাস সংক্রমণে বেশি মৃ'ত্যু হয়েছে; এমন কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

প্রত্যেক বছর বিশ্বের কোটি কোটি মুসলিম পবিত্র রমজান মাস পালন করেন। এ সময় ইসলামের বিধান অনুযায়ী— তারা সেহরি থেকে ইফতারের পূর্ব পর্যন্ত কোনো ধরনের খাবার এবং পানীয় গ্রহণ থেকে বিরত থাকেন। যুক্তরাজ্যে ৩০ লাখের বেশি মুসলিম বসবাস করেন; যা দেশটির মোট জনসংখ্যার প্রায় পাঁচ শতাংশ এবং তাদের বেশিরভাগই দক্ষিণ এশীয় বংশোদ্ভূ'ত ।

প্রতিবেদনে বলা হয় করোনাভাইরাসে মৃ'ত্যুর ওপর রমজান মাসের আনুষ্ঠানিকতা পালনের ক্ষ'তিকর প্রভাব নেই। ইংল্যান্ডের এক ডজনের বেশি স্থানীয় কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে সংগৃহীত করোনায় মৃ'ত্যুর ডাটা বিশ্লেষণ করে ওই প্রতিবেদন তৈরি করা হয়। এসব এলাকায় মুসলিম জনগোষ্ঠীর সংখ্যা প্রায় ২০ শতাংশ।

গবেষকরা দেখেছেন, ইংল্যান্ডের এই এলাকাগু'লোতে রমজান শুরু হওয়ার পর করোনায় মৃ'ত্যুর হার ধা'রাবাহিকভাবে কমে যায়। এছাড়া মৃ'ত্যুর হার কমে যাওয়ার এই গতি পুরো রমজান মাসজুড়ে অব্যা'হত থাকে। গবেষকরা বলেছেন, মুসলিম অধ্যুষিত এলাকাগু'লোতে রমজান মাস পালনের কারণে করোনার ক্ষ'তিকর কোনো প্রভাব দেখা যায়নি।

গবেষণা সহকারী সালমান ওয়াকার জানান, করোনাভাইরাস মহামারির ওপর রমজানের ক্ষ'তিকর প্রভাবের আলামত পাওয়া যায়নি।সূত্রঃ আল জাজিরা