পরীমণিকে কেন আটক করে জেলে দেয়া হলো না, প্রশ্ন জয়নাল হাজারীর

সময়ের সাথে সাথে পাল্লা দিয়ে যে কয়জন অভিনেত্রী সিনেমা প্রেমীদের হৃদয়ের মণিকোঠায় জায়গা করে নিয়েছেন তাঁর মধ্যে পরীমণি অন্যতম। এই পর্যন্ত ভিন্নধর্মী চরিত্রে অভিনয় করে তিনি আলোচনায় এসেছেন বহুবার। ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার বিষয়ে কথা বলে ফের আলোচনায় এসেছেন এই বিউটি কুইন।

নতুন খবর হচ্ছে, ঢালিউডের আলোচিত অভিনেত্রী পরীমণি ঢাকা বোট ক্লাবে তাকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগ নিয়ে থানা-পুলিশ হয়েছে এবং এ ঘটনার একাধিক ভিডিও ভাইরালের পর মানুষের মিশ্রপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে নেটদুনিয়ায়। এ নিয়ে এবার মুখ খুললেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা কমিটির সদস্য জয়নাল আবেদীন হাজারী।

তিনি নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজ থেকে এক লাইভে বলেছিলেন, ‌’পরীমণি বোট ক্লাবের ঘটনার পর থানায় গিয়েছিলেন মামলা করতে। তবে পরীমণি অসংলগ্ন মাতাল ছিলেন বলে সেই মামলা নেননি থানার ওসি সাহেব। আমার প্রশ্ন হচ্ছে, সে যদি মাতাল হয়- তাকে সঙ্গে সঙ্গে গ্রেফতার করে হাসপাতালে নিয়ে ওয়াশ করার নিয়ম। কিন্তু তখন তা কেন করা হলো না।’

ডিবির যুগ্ম কমিশনার হারুন অর রশীদের এক বক্তব্যে সাহস পেয়েছেন জানিয়ে হাজারী আরও বলেন, ‌’হারুন সাহেব বলেছেন- মেয়েটা যদি ওখানে না যেত এই অবাঞ্ছিত ঘটনা ঘটতো না। হ্যাঁ, এটাই ঠিক।

এখন আমি বলতে পারি এই করোনাকালে একটি যুবতি মেয়ে পরীমণি রাত তিনটা পর্যন্ত সেই বোট ক্লাবে ছিলো, সে সেখানে ভাংচুর চালিয়েছে বলে ক্লাবটি মামলা করেছে…।