মুক্ত হয়ে যা বললেন হেফাজত নেতা মামুনুল হক

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে একটি রিসোর্টে অবরু'দ্ধ হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক মুক্ত হয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় মুক্ত হয়ে তিনি বলেন, আপনাদের ভালোবাসার জন্য আমি কৃতজ্ঞ।

সাংবাদিক ও পুলিশ আমা'র সঙ্গে কোনো খারাপ আচরণ করেনি। কিছু বাইরের লোক খারাপ আচরণ করেছে। আমি আমা'র দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে এখানে ঘুরতে এসেছিলাম।

মামুনুল হকের দাবি, সঙ্গে থাকা নারীর নাম আমিনা তৈয়ব। তিনি মামুনুল হকের দ্বিতীয় স্ত্রী। আমিনাকে সঙ্গে নিয়ে রিসোর্টে ঘুরতে গিয়েছিলেন তিনি।

নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অ’পরাধ) মোশাররফ হোসেন বলেন, স্থানীয় লোকজন রিসোর্টে মামুনুল হককে অবরু'দ্ধ করে পুলিশে খবর দেয়।

এদিকে, হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম-মহাসচিব মামুনুল হককে একটি রিসোর্টে জিজ্ঞাসাবাদের ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। খবর ছড়িয়েছে, সেখানে তিনি এক নারীসহ স্থানীয়দের হাতে ‘আট'ক’ হয়েছেন।

যদিও ওই নারীকে নিজের স্ত্রী বলে দাবি করেছেন মামুনুল হক। তবে নারায়ণগঞ্জ জে’লা পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্ম'দ জায়েদুল আলম বলেন, হেফাজত নেতা মামুনুল হককে আট'ক কিংবা গ্রেফতার কোনোটিই করা হয়নি। স্থানীয়রা তাকে ঘিরে ফেলায় পুলিশ তাকে নিরাপ'ত্তা দিয়ে রেখেছে।

সর্বশেষ খবর অনুযায়ী হেফাজত অনুসারিরা রাস্তায় মাওলানা মামুনুল হককে নিয়ে একটি প্রতিবাদ মিছিল বের করে রাস্তা প্রদক্ষিন করে।