হাসপাতালে ঠাঁই নেই, করোনা রোগীর জায়গা হলো গাছতলায়!

করোনা সংতক্রমণ ভয়াবহ রূপ নিয়েছে যশোরে। গত ২৪ ঘণ্টায় যশোরে করোনায় আক্রন্ত ও উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয়েছে ১২ জনের। এ সময়ে নতুন করে আরো ২৭৯ জনের করোনা পজিটিভ হয়েছে।

করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি রোগীর চিকিৎসা দিতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছে কর্তৃপক্ষ। হাসপাতালে ঠাঁই না মেলায় অনেকে হাসপাতালের বাইরে অবস্থান করছেন।

মঙ্গলবার যশোর জেনারেল হাসপাতালের বাইরে গাছতলায় দেখা গেছে রিনা খাতুন (৫৫) নামের এক করোনা রোগীকে। তার স্বজনরা জানান, করোনা উপসর্গ নিয়ে গতকাল সোমবার তাকে যশোর

জেনারেল হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। ওয়ার্ডে জায়গা না হওয়ায় বাইরে নমুনা সংগ্রহের জন্য রাখা টেবিলের উপর রাখা হয়। আজ সকালে নমুনা সংগ্রহ শুরু হওয়ায় টেবিলের ওপর থেকে নামিয়ে গাছতলায় রাখা হয় রিনাকে। তার বাড়ি যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার বারবাগ গ্রামে।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. আরিফ আহমেদ বলেন, করোনা রোগী ও উপসর্গ নিয়ে আসা রোগীদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় শয্যা বাড়িয়েও জায়গার সংকুলান হচ্ছে না। ফলে জায়গা না পেয়ে বারান্দা কিংবা গাছতলায় থাকার মতো ঘটনা ঘটছে। তবে আমরা ইয়োলো জোনের শয্যা ও জায়গা বৃদ্ধি করছি। আরও বাড়ানো প্রক্রিয়াধীন।

জানা যায়, করোনা ওয়ার্ডের রেড জোনে ১৪৬ শয্যার বিপরীতে ১৩৬ জন ও ইয়োলো জোনের ২২ শয্যার বিপরীতে ৯৯ জন রোগী ভর্তি আছেন।

এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় জেলার ৭৮২ জনের নমুনা পরীক্ষায় ২৭৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার প্রায় ৪০ শতাংশ। নতুন করে ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ছয়জন করোনা রোগী ছিলেন। বাকি ছয়জনের উপসর্গ ছিল। বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি আছে ২৩৫ জন।