দাদির কাছে ঘু’মাচ্ছিল শিশুটি, গভীর রাতে কু’পিয়ে হ’ত্যা করলো সৎ মা!

দাদির কাছে ঘু'মাচ্ছিল পাঁচ বছরের শিশু তানিশা আক্তার। গভীর রাতে ঘু'মন্ত তানিশাকে উঠিয়ে নিজের কাছে নেন সৎ মা মুক্তা খাতুন। এরপর দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কু'পিয়ে সন্তানকে নিজের হাতে খু'ন করে ক্ষো'ভ মেটালেন তিনি। তানিশার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ছুটে গিয়ে রক্ত দেখে থা'নায় খবর দেয়।

সোমবার (০৫ এপ্রিল) রাতে খুলনার তেরখাদা উপজে’লার আড়কান্দী গ্রামে মর'্মান্তিক এ ঘটনা ঘটে। নি'হত তানিশা একই গ্রামের খাজা শেখের মেয়ে। এ ঘটনায় অ'ভিযুক্ত মুক্তা খাতুনকে আট'ক করেছে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানায়, সাত বছর আগে একই উপজে’লার আক্কাস শেখের মেয়ে তাসলিমাকে বিয়ে করেন খাজা শেখ। একপর্যায়ে তাদের ছাড়াছাড়ি হয়। বছর দেড়েক আগে মুক্তাকে বিয়ে করেন তিনি। এরপর থেকেই সৎ মেয়ের ওপর অ'ত্যাচার শুরু হয়। বাবার বাড়িতে নিয়েও তানিশাকে নি'র্যা'তন করতেন মুক্তা।

সোমবার রাতে বাড়িতে ছিলেন না তানিশার বাবা। দাদির কাছে ঘু'মিয়েছিল শিশুটি। গভীর রাতে ঘু'মন্ত অবস্থায় তাকে তুলে নিয়ে দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কো'পাতে থাকেন মুক্তা।

এতে তানিশার চিৎকারে আশপাশের লোকজন রক্ত দেখে পুলিশে খবর দেন। পরে সৎ মা মুক্তাকে হাতেনাতে আট'ক করে পুলিশ। এ সময় হ'ত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত দা উদ্ধার করা হয়েছে।

তেরখাদা থা'নার ওসি মোহাম্ম'দ গো'লাম মোস্তফা বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে শিশু তানিশাকে মেনে নিতে না পারায় সৎ মা মুক্তা তাকে হ'ত্যা করেছে।

শিশুটিকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজে’লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠান চিকিৎসকরা। সেখানেই তার মৃ'ত্যু হয়।