বোনের বাড়ির পিঠা খেতে দেয়ায় মা-ভাবিকে কু’পিয়ে হ”ত্যা

কুমিল্লায় বোনের বাড়ির পিঠা খেতে দেয়াকে কেন্দ্র করে মা ও ভা'বিকে কু'পিয়ে হ'ত্যা করেছে সাইফুল ইসলাম (২৫) নামে এক যুবক। সোমবার (৮ ফেব্রুয়ারি) নাঙ্গলকোট উপজে’লার আদ্রা দক্ষিণ ইউনিয়নের পুজকরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পরে স্থানীয়রা ঘা'তক সাইফুল ইসলামকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। তিনি একই গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে।

নাঙ্গলকোট থা'নার ওসি বখতিয়ার উদ্দিন জানান, ৬ মাস আগে সাইফুল ইসলামের ছোট বোন জেসমিন আক্তার প্রেম করে একই গ্রামের শাহজাহানকে পালিয়ে বিয়ে করেন। এ ঘটনায় ক্ষু'ব্ধ ছিলেন সাইফুল। পরিবারের সদস্যরা একপর্যায়ে মেনে নিলেও ভাই সাইফুল ইসলাম বিষয়টি মেনে নিতে পারেন নি।

এ নিয়ে বিরোধ চরম আকার ধারণ করে। সোমবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সকালে জেসমিন স্বামীর বাড়ি থেকে নাস্তা পাঠায় স্বজনদের জন্য। ওই নাস্তা সাইফুলকে খাওয়ানোয় মা নুরজাহানের (৫৫) সাথে বাগবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে সাইফুল মাকে বটি দিয়ে কু'পিয়ে আ'হত করেন। তাকে বাঁচাতে বড় ভাইয়ের স্ত্রী নুরুন্নাহার বেগম পুষ্প (৪৫) এগিয়ে এলে তাকেও কু'পিয়ে আ'হত করে সাইফুল।

পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে নাঙ্গলকোট উপজে’লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃ'ত ঘোষণা করেন। এসময় স্থানীয়রা ঘা'তক সাইফুলকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন। নি'হতের বড় ছেলে আবদুল আজিজ বাদি হয়ে মাম'লা দায়ের করেন।

বখতিয়ার উদ্দিন আরও জানান, ময়নাতদ'ন্তের জন্য মর'দেহ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপা'তালের মর'্গে প্রেরণ করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে হ'ত্যায় ব্যবহৃত ধা'রালো বটি উদ্ধার করেছে।