মারণরোগ ক্যান্সারে আক্রান্ত ঐন্দ্রিলা শর্মা, মনের জোর বাড়াতে ন্যাড়া হলেন অভিনেত্রীর বাবা!

বাংলা টেলিভিশন জগতের একজন জনপ্রিয় অভিনেত্রী হলেন ঐন্দ্রিলা শর্মা। কালারর্স বাংলার ‘জিয়ন কাঠি’ সিরিয়ালে জাহ্নবী হিসেবে তাঁকে সকলেই চেনে। অভিনয় দিয়েই সে জয় করেছে সকল দর্শকদের মন। তাঁর বেশ ফ্যা'ন ফলোয়িংও রয়েছে। কম-বেশি সকলেই জানেন যে, তিনি একসময় ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছিলেন।

১৬ টি রে'ডিয়েশন ও ৩৩ টি কেমোথেরাপি নিয়ে তিনি ক্যান্সারের বিরুদ্ধে জয়ীও হয়েছিলেন। তারপর পড়াশোনা ও অভিনয় নিয়ে বেশ ভালোই চলছিল তাঁর দিনযাপন। কিন্তু ফের ৫ বছর পর আবারও ক্যান্সার থাবা বসিয়েছে তাঁর শরীরে। আর তাঁর এই খবর শোনা মাত্রই মন ভেঙে যায় তাঁর অনুরাগী সহ কাছের মানুষদের।

দিল্লির একটি বেসরকারি হাসপা'তালে তিনি চিকিৎসাও করাচ্ছেন এই রোগের। আর সেখান থেকেই কয়েকদিন আগে লাইভে এসে তাঁর জন্য ভগবানের কাছে প্রাথনা করতেও বলেন অভিনেত্রী।এমনকি সে কথা বলতে বলতেই ভেঙ্গেও পড়েন তিনি। কিন্তু অভিনেত্রী সাময়িকভাবে ভেঙে পড়লেও জোর কদমে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন এই মারণ রোগের বিরুদ্ধে।

কিন্তু মানসিক ও শারীরিক হাজারও কষ্ট নিয়েও দিনের পর দিন হাসি মুখে কা'টাচ্ছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবিও পোস্ট করছেন। দ্বিতীয় কেমো নেওয়ার পর অভিনেত্রীকে তাঁর একঢাল চুল কে'টে নেড়া 'হতে হয়েছে। তাতে একেবারেই ভেঙে পড়েননি অভিনেত্রী। বরং হাসি মুখে ছবি পোস্ট করে ক্যাপশনে লেখেন যে, চুলেই নারীর সৌন্দর্য্যে আর নয়’।

আর তাঁকে সাহস জোগাতে নেড়া হন তাঁর বান্ধবী পারমিতা সেনগু'প্ত নামের একজন। আর সেই ছবিও মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। সম্প্রতি ঐন্দ্রিলা তাঁর ইন্সট্রাগ্রাম হ্যান্ডেলে একটি ছবি পোস্ট করেন। যেখানে অভিনেত্রীর সঙ্গে তাঁর বাবা কেও নেড়া অবস্থায় দেখা যায়।

আর এর থেকে কারোরই বুঝতে বাকি নেই বাবা তাঁর মেয়ের জন্যই এটা করেছেন। ছবি পোস্ট করে ঐন্দ্রিলা ক্যাপশনে লেখেন যে, ‘বাবা কখনও মুখে বলেনা ভালোবাসি। নীরবে প্রাণ দিয়ে ভালোবেসে যায়। কাল হটাৎ সব চুল কে'টে দেয়।

বাবার ভালোবাসা হয়তো এরকমই হয়। আমি খুবই ধন্য’। সম্প্রতি বাবা-মেয়ের এই ছবিই ঝড়ের বেগে ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।