আমি হতাশ, এই ভুল আর করব না: দীঘি

অনেক প্র'ত্যাশা নিয়েই হয়তো নায়িকা হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করেছেন শিশুশিল্পী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রা’'প্ত অ’ভিনেত্রী প্রার্থনা ফারদিন দীঘি। শিশু দীঘির জন্য ভালোবাসার কমতি কোনোদিনই ছিলো না দর্শকের।

নন্দিত মডেল ফয়সালের স’ঙ্গে গ্রামীন ফোনের সেই বিজ্ঞাপন কিংবা ‘চাচ্চু’, ‘দাদীমা’ ছবিগু’লো দীঘির উপস্থিতি চিরকাল দর্শককে আপ্লুত করবে। কিন্তু নায়িকা হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করতে গিয়ে ঠিক যেন তাল মেলাতে পারছেন না এই তরুণী।

এরমধ্যে সর্বশেষ যোগ হলো সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া ‘তুমি আছো তুমি সেই’ শিরোনামের সিনেমা’র ট্রেলারের সমালোচনা। ট্রেলারটি দেখে দর্শক সমালোচনায় মেতেছেন এ সিনেমা’র নির্মাণ, গল্প, অ’ভিনয়ের। তবে যেহেতু দর্শকের জন্য এ ছবির মূল আকর্ষণে দীঘি তাই তাকে নিয়েই ‘'হতাশা প্রকাশ করছেন তারা।

এ প্রস’ঙ্গে অ’ভিনেত্রী দীঘি বলেন, প্রথমে কয়েক সেকেন্ড দেখেই মনটা খারাপ হয়ে গেল। আমি ভীষণ আপসেট হয়ে পড়ি। ট্রেইলারটি ভালো লাগেনি আমা’র। সত্যি বলতে ‘'হতাশার মধ্যে পড়ে গেছি। কাজটি করার সময় কিংবা শুটিং শেষে ডাবিং করার সময়ও কিন্তু মনে হয়নি যে এত খারাপ হবে কাজটি। এটা দেখার পর আমা’র আ’ত্মবিশ্বা’স কমে গেছে। আড়াই মিনিটের এই ট্রেইলার তো পুরো ছ'বিকে রিপ্রেজেন্ট করে না।

ট্রেইলার মুক্তির পর দর্শকদের এতো সমালোচনা, তারপরও কী দর্শক ছবিটি দেখতে সিনেমা হলে যাব’ে বলে মনে করেন? দীঘির উত্তর, ট্রেইলার দেখেই ছবির ওপর দর্শকের নেতিবাচক ধারণা তৈরি হয়েছে।

এই ট্রেইলার দেখার পর দর্শকদের কোনো আশা দিতে পারি না। ছবিটি দেখতে উৎসাহিত করতে পারি না। আমা’র নিজেরই তো কোনো প্র'ত্যাশা নেই ছবিটি নিয়ে। কারণ, মুক্তির পরে ছবিটি ভ’য়াবহ অবস্থায় পড়তে পারে। তিনি আরও বলেন, কাজটি করা আমা’র ভুল হয়েছে। আর ভুল থেকেই মানুষ শিক্ষা নেয়, ঘুরে দাঁড়ায়। আমি প্রমিজ করছি, এই ভুল আর করব না। কোনো দিনই করব না। যদি কখনো করেই ফেলি, সেদিন সিনেমা ছেড়ে দেব