আমরা কাউকে ঘরের বাইরে দেখতে চাই না: আইজিপি

ঘরের বাইরে গেলে মাস্ক পরে বের 'হতে হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ। তিনি বলেছেন, ‘আগামীকাল থেকে আপনাদেরকে ঘরের বাইরে দেখতে চাই না।

প্রয়োজনে বের হবেন। ঘরের বাইরে গেলে মাস্ক পরতে হবে এবং বাইরে থেকে ঘরে ফিরে স্যানিটাইজার দিয়ে পরিষ্কার হবেন। আপনার মাধ্যমে যেন আপনার প্রিয়জন করোনায় সংক্রমিত না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।’

মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) রাজারবাগ পুলিশ লাইন অডিটেরিয়ামে করোনা সংক্রমণ রোধকল্পে বিধিনিষে'ধ চলাকালে জরুরি প্রয়োজনে মুভমেন্ট পাস অ্যাপসের উদ্বোধন করা হয়।

আইজিপি বলেন, রাস্তায় জটলা পাকাবেন না। হাতিরঝিলে বা অন্য কোথাও তরুণ-তরুণীদের আড্ডা না দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন পুলিশ প্রধান।

ড. বেনজীর বলেন, ‘বাজার, করোনার টিকার ডেট থাকলে, অতিপ্রয়োজনীয় কাজ থাকলে বের হওয়া যাব'ে। এমনকি অ্যাম্বুলেন্সে রোগীর যাওয়ার প্রয়োজন হলেও মুভমেন্ট পাস লাগবে।’

চালুর প্রথম ঘণ্টায় পাঁচ হাজার মুভমেন্ট পাসের আবেদন জমা পড়েছে।

কেউ মিথ্যা বলে মুভমেন্ট পাস নিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে কি-না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে আইজিপি বলেন, ‘ঢাকার বাইরে গেলে মুভমেন্ট পাস লাগবে। একটি মোবাইল নম্বর দিয়ে একটি গাড়ির নম্বর দিয়ে একাধিক পাস নেয়া যাব'ে না। এটা মুভমেন্ট পাস নিতে আমর'া কাউকে বাধ্য করছি না। এটাকে সা'পোর্ট হিসেবে দেখা হচ্ছে।’

সম্প্রতি সাংবাদিকদের ওপর হাম'লাকারীদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হবে কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে আইজিপি বলেন, ‘আমি ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবকে আর্থিক সহযোগিতা করেছি। দুইজন সাংবাদিকদের সঙ্গে সরাসরি কথা বলেছি। তাদের বলেছি মাম'লা করতে। আমর'া তাদেরকে সহযোগিতা করেছি।’

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (প্রশাসন) ড. মঈনুর রহমান চৌধুরী, ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মোহাম্ম'দ শফিকুল ইসলাম সহ পুলিশের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

যেভাবে আবেদন করা যাব'ে মুভমেন্ট পাস-

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে চলমান লকডাউনে মানুষের অনিয়ন্ত্রিত ও অ’প্রয়োজনীয় চলাচল রোধে এবং জরুরি বিশেষ প্রয়োজনে যাতায়াত নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ পুলিশ চালু করছে- movementpass.police.gov.bd/

দেশের যেকোনো নাগারিক এ movementpass.police.gov.bd/ ওয়েবসাইটের মাধ্যমে কয়েকটি তথ্য সরবরাহ করে খুব সহজইে এ পাস সংগ্রহ করতে পারবেন। এ অ্যাপসটি ব্যবহার করলে একদিকে যেমন জরুরি প্রয়োজনে নাগরিকদের চলাচল নিশ্চিত করা যাব'ে, অন্যদিকে মানুষের অ’প্রয়োজনীয় ও অনিয়ন্ত্রিত চলাচলও বন্ধ করা যাব'ে।