২৩ বছরের সংসার, ভালোবাসা দিবসে নিজের কিডনি দিয়ে স্ত্রীর প্রাণ বাঁচালেন স্বামী

ভালোবাসা দিবসে এক অন্যরকম ভালোবাসার প্রতিফলন ঘটলো। স্ত্রীকে বাঁচাতে নিজের কিডনি দিয়ে দিলেন স্বামী। ভ্যালেন্টাইনস ডে ও ২৩তম বিবাহবার্ষিকীতে এরকম একটি মহৎ কাজের মধ্যে দিয়ে উদযাপন করলেন তারা।

অটোইমিউনো কিডনি রোগে ভুগছিলেন ভারতের আহমেদাবাদের রিতাবেন। গত ৩ বছর ধরে তিনি এই রোগের শি'কার। রোগ প্রতিরোধ ক্ষ'মতা নেই শরীরে। ফলে কোনও কঠিন রোগের মোকাবিলা করা সম্ভব হয় না।

এই রোগের ফলে শরীরের কোনও কোনও গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ খুবই ক্ষ'তিগ্রস্ত হয়। কখনও কখনও মৃ'ত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে। রিতাবেনের ক্ষেত্রে কিডনিতে বাসা বেঁধেছে এই রোগ।

ফলে অ'স্ত্রোপচার ছাড়া কোনও উপায় ছিল না চিকিৎসকদের কাছে। চিকিৎসকরা জানান যে, এই ভ্যালেন্টাইনস ডে-র দিন তারা অ'স্ত্রোপচার করবেন। চিকিৎসকদের কথায় স্ত্রীকে নিজের একটা কিডনি দানের জন্য রাজি হয়ে যান রিতাবেনের স্বামী বিনোদ।

তিনি বলেন, গত ৩ বছর ধরে স্ত্রীকে কষ্ট পেতে দেখছি৷ স্ত্রীর বয়স ৪৪ বছর। ও দীর্ঘায়ু হোক, আমি তাই চাই। সে জন্য নিজের একটা কিডনি দান করার সিদ্ধান্ত নিলাম। এর মাধ্যমে সমাজেও এক বার্তা দিতে চাই। সবাই যেন নিজের সঙ্গীকে সম্মান করেন এবং প্রয়োজনে একে অ’পরের পাশে দাঁড়ান।

স্বামীর প্রতি নিজের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন স্ত্রীও। তিনি বলেন যে এমন স্বামী থাকার ফলে তিনি মনে জোর পাচ্ছেন এবং নিজেকে খুব ভাগ্যবান মনে করছেন।

তিনি বলেন, আমার নিঃশ্বা'স নিতে কষ্ট 'হতো।আমার স্বামী জানান যে তিনি আমায় কিডনি দান করবেন। তাহলে আমর'া দু’জনেই বাঁচব এবং একসঙ্গে সুখে সংসার করতে পারব।