বিয়ে না করলেও ডেটে যেতে আপত্তি নেই শ্রীলেখার, আগ্রহী ফ্যানদের দিলেন অভিনব শর্ত

সোশ্যাল মিডিয়ায় নিয়মিত অ্যাক্টিভ থাকার পাশাপাশি সম্প্রতি বেশ চর্চায় রয়েছেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র ( Sreelekha Mitra)।কমেন্ট বক্সে মাঝেমধ্যেই ফ্যানদের প্রশ্নের উত্তর দিতে দেখা যায় অভিনেত্রীকে।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ফ্যানদের সাথে এক অভিনব ঘোষণা করেছেন অভিনেত্রী। ইনস্টাগ্রামে(Instagram) একটি ভিডিও করে অভিনেত্রী জানিয়েছেন প্রতিদিন ফ্যানেদের একটা করে প্রশ্নের উত্তর দেবেন তিনি। গতকাল এমনই একজন অনুরাগীর করা প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন অভিনেত্রী।এমনিতেই বরাবরই স্পষ্টবাদী শ্রীলেখা।সব প্রশ্নের উত্তরই থাকে অভিনেত্রীর ঠোঁটের ডগায়।

গতকাল একটি ছোট্টো ভিডিওতে শ্রীলেখা জানিয়েছেন ‘আমার প্রশ্ন চাওয়া দেখে একজন অনুরাগী বলছেন, আপনি এমন করে প্রশ্ন চাইছেন যেন এক একবার এক এক জনকে বিয়ে করবেন। সরি ভাই.. ন্যাড়া একবারই বেলতলায় যায়।

একবারই বিয়ে করেছি, আর না।’ অভিনেত্রী বিয়ে করবেন না বলেছেন ঠিকই, কিন্তু ডেটে যেতে তো অস্বীকার করেননি। তাই সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে আজ অর্থাৎ বুধবার সকালেই সঞ্জীব নামে এক ফ্যান তাঁকে প্রশ্ন করেন, শ্রীলেখার প্রতি তাঁর ভালোবাসা তিনি কী ভাবে ব্যক্ত করবেন?

সেই প্রশ্নের উত্তরেই বুধবার শ্রীলেখা জানালেন, তাঁর সঙ্গে ডেটে যেতে চাইলে কী করতে হবে।উত্তরে এদিন শ্রীলেখা বলেন, ‘যদি তুমি সত্যিই আমায় ভালোবাসো তা হলে রাস্তার কুকুর-বেড়ালদের একটু দেখো। ওদের নিয়ে ভালোবেসে তুমি যদি ছবি দাও তা হলে আমি কফি ডেটে (Date) নিয়ে যাব, ডান।’শ্রীলেখার উত্তর পাওযার পর সঞ্জীবও আর দেরী করেননি।ডান লিখে রিপ্লাই করেছেন ভিডিওতে।

উল্লেখ্য, শ্রীলেখার পশুপ্রেমের কথা কমবেশি সকলেরই জানা।পথপশুদের আদর যত্ন করে নিজের সন্তানের মতোই খেয়াল রাখেন অভিনেত্রী। তাদের খাওয়ানো থেকে শরীর খারাপ হলে তাদের চিকিৎসার ব্যবস্থা সবই করেন তিনি।গতবছর লকডাউ চলাকালীন রাস্তার কুকুরদের খাওয়ানোর দায়িত্ব নিয়েছিলেন তিনি। এই নিয়ে একাধিকবার সমস্যার সম্মুখীনও হলেও কোনও দিন পিছিয়ে আসেননি তিনি।

এসবের মধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় সম্প্রতি এক বিবাহিত ব্যক্তি, অভিনেত্রীর সঙ্গে ‘ডেটে’ যাওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করেছিলেন।সঙ্গে সঙ্গে যেতে রাজিও হয়ে গেলেন অভিনেত্রী।তবে উত্তরে তিনি জানান , “তুমি, আমি আর তোমার বউ, তিনজনে মিলে ডেটে গেলে কেমন হয়?” অভিনেত্রীর এমন উত্তরে তাঁর প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়েছেন নেট নাগরিকরা।