পুলিশ ম্যাজিকের মতো কাজ করেছে : পরী মণি

চিত্রনায়িকা পরী মণি বলেছেন, ‘আমাকে ডিবি পুলিশ ডাকেনি, আমি নিজে থেকেই এখানে এসেছি। আমাকে কাজে ফিরতে হবে। পুলিশ বন্ধুসুলভ আচরণ করেছে। আমাকে মানসিকভাবে শক্তি জুগিয়েছে। হারুন (ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার) স্যার অনেকটা ম্যাজিকের মতো সবকিছু করেছেন।

আজ মঙ্গলবার রাজধানীর মিন্টু রোডের ডিবি কার্যালয় থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে পরী মণি এসব কথা বলেন।

পরী মণি বলেন, এতোটা তাড়াতাড়ি ম্যাজিকের মতো পুলিশ আমাকে সহযোগিতা করবে, সেটা আমি ভাবতে পারিনি। কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই দেখলাম অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আমার বিশ্বাস সঠিক বিচার পাব।

নিজের অবস্থা বর্ণনা করে পরী মণি বলেন, ‘আমি মেন্টালি রিফ্রেশ এখন। আমি যে কাজে ফিরতে পারব কেউ বলেনি…। আমার আশেপাশের সবাই সান্ত্বনা দিয়েছে। আমার যে কাজে ফিরতে হবে এই শক্তিটা তাঁরা (পুলিশ) আমাকে দিয়েছে। আমার কাজ নিয়ে কথা বলেছে, আমাকে নানা রকম গুড ফেইথ দেওয়া হচ্ছে। নরমাল লাইফে আমি কিভাবে ফিরে যাব… আমি এতটা তাঁদের কাছে আশা করিনি, এতটা বন্ধুসুলভ।’

‘একটা ম্যাজিকের মতো হয়ে গেছে। এত তাড়াতাড়ি স্যার সব কিছু…হ্যাঁ, হারুন স্যার যেভাবে একটা ম্যাজিকের মতো… কয়েক ঘণ্টার মধ্যে…। মানে ঘুমানোর টাইম পাইনি, তার আগেই আমি দেখলাম যে…এত দ্রুত কাজগুলো হয়ে গেছে। গ্রেপ্তার করা হয়েছে, এখন শুধু আমার বিশ্বাস, আমি সঠিক বিচার পাব।’

এর আগে আজ বিকেল ৩টা ৫৫ মিনিটে ডিবি কার্যালয়ে যান পরী মণি। তাঁর সঙ্গে যান চলচ্চিত্র নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী ও মামলার সাক্ষী পরী মণির কসটিউম ডিজাইনার জিমি।

গত ৯ জুন রাতে চিত্রনায়িকা পরী মণি সাভারের বিরুলিয়ার তুরাগ নদের তীরে অবস্থিত ঢাকা বোট ক্লাবে তুহিন সিদ্দিকী অমির সঙ্গে যান। সে সময় তাঁকে নেশাজাতীয় দ্রব্য খাইয়ে ধর্ষণ ও হত্যার চেষ্টা করেন নাসিরউদ্দিন মাহমুদ নামের এক ব্যবসায়ী।

এর আগে চিত্রনায়িকা পরী মণির করা সাভার থানার মামলায় গতকাল সোমবার নাসিরউদ্দিন মাহমুদসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। এ ছাড়া গ্রেপ্তারের সময় আসামিদের হেফাজত থেকে মাদকদ্রব্য জব্দ করা হয়, সেজন্য বিমানবন্দর থানায় একটি মাদক মামলা করা হয়।

এর আগে গত রোববার সন্ধ্যায় নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে বিচার চেয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন পরী মণি। তিনি দাবি করেছেন যে, ছয়জন তাঁকে ধর্ষণ ও হত্যার চেষ্টা করেছিল।

ফেসবুক স্ট্যাটাসের পর গত রোববার রাত ১০টার দিকে তিনি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন। সংবাদ সম্মেলনে এই নায়িকা জানান, তিনি জীবনের নিরাপত্তহীনতায় ভুগছেন। নিজ বাসায় তিনি নিজেকে নিরাপদ বোধ করছেন না। ঘটনার পর ভোর রাতে বনানী থানায় অভিযোগ করতে গেলে তাঁর অভিযোগ গ্রহণ করা হয়নি বলে জানান এই অভিনেত্রী।