ফুডপান্ডার খাবার নিয়ে চার তলায় না উঠায় রোজাদার রাইডারকে মারধর

ঢাকার সাভারে রোজা রেখে চার তলায় না উঠায় ফুডপান্ডার এক রাই’ডারকে মার’ধরের ঘটনা ঘটেছে। ভুক্ত’ভোগী ওই রাইডারের নাম আব্দুল লতিফ। তিনি বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) এ ঘট’নার কথা গণ’মাধ্যমক’র্মীদের বলেন। এই ঘটনার একটি ভিডিও ইতো’মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাই’রাল হয়েছে।

বুধবার (১৪ এপ্রিল) 'বিকাল ৫টার দিকে সাভারের বনপু’কুরের মা’লঞ্চ আবাসিক এলাকায় এই ঘ’টনা ঘটে। ঘটনার সময় পা’শের ভবনে থাকা এক ব্যক্তি ভিডিওটি করে। পরবর্তীতে সেই ভিডিও ফেসবুকে ছেড়ে দিলে তা ধীরে ধীরে ভা’ইরাল হয়ে যায়।

প্রাথমিকভাবে জানা গেছে মার’ধর করা সেই ব্যক্তির নাম সাই’দুর রহমান সুজন। বনপুকু’রের মা’লঞ্চ আবাসিক এলাকায় একটি ইলে’কট্রনি’ক্সের দোকানে ব্যবসা করেন।

ভাইরাল ৩ মিনিট ৮ সেকে’ন্ডের ভিডি’ওতে দেখা যায়, সাইকেল নিয়ে ফুড’পা’ন্ডার রাই’ডার লতিফ দাঁড়িয়ে আছে। তখন সুজন তাকে গা'লি’গালাজ করছে। এক’পর্যায়ে কয়ে’কটি থা’প্পড় মা’রা হয়। তখন একজন নারী এসে লতিফকে বাঁচা’নোর চে'ষ্টা করেন। কিন্তু পর’ক্ষণে আবার মার’ধর শুরু হয়। পরে সুজনের সঙ্গে থাকা আরেক ব্যক্তি লতি’ফকে মার’ধর করে তাড়িয়ে দেয়।

ভু’ক্ত’ভোগী লতিফ বলেন, গতকাল প্রথম রো’জার দিন সুজন নামের এক ব্যক্তি খাবা’রের অর্ডার দেন। আমি খাবার নিয়ে গিয়েছি। তিনি চারতলায় যেতে বলে’ছিলেন আমি রোজা ছিলাম তাই যেতে চাইনি।

পরে সে এসে নানা গা'লি’গালাজ করে আমাকে মার’ধর করে। আমার এই বি'ষয়টি ফু’ড’পান্ডা কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। তারা ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

অ'ভিযোগ অ'স্বী’কার করে সাইদুর রহমান সুজন বলেন, আমি কাল ৫.১৫ মিনিটের দিকে হালিমের অ’র্ডার দেই। উনি আমার ভবনের সামনে এসে ফোন করে। আমি তখন বলি ভাই আমি একটু অ’সুস্থ, আপনি খা’বারটা একটু চার’তলায় এসে দিয়ে যান। আমার পায়ে একটু অ'সুবিধা আছে আমাকে একটু দিয়ে গেলে উপকার হবে। পরে সে বলে দেওয়া যাব'ে না।

তিনি আরও বলেন, পরে আমি তাকে বলি কোনোভাবে অর্ডার ক্যা’ন্সেল করে দেওয়া যায় কি না। তখন তিনি আমাকে বাজেভাবে বকা দেন। আমার কথাটা শুনে খুবই খা’রাপ লেগেছে। পরে আমি নিচে নেমে তাকে সরি বলতে বলি সে বলেনি। এর জন্য রাগ হয় আমার।

এ বি'ষয়ে ফুডপা’ন্ডার সাভার জোনের এক কর্ম’কর্তার সঙ্গে কথা হলে তিনি নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, বি'ষয়টি আমা'দের হেড অফিসকে জানানো হয়েছে। আমর'া এখনো সাভার জোন থেকে কেনো আইনি কার্য’ক্রমে যাইনি। হেড অফিস যা করবে তাই হবে।

সাভার মডেল থা’নার পরিদর্শক ( তদ'ন্ত) সাইফুল ইসলাম বলেন, বি'ষয়টি আপনার কাছে জানতে পারলাম। আমা'দের কাছে এখনো কেউ অ'ভিযোগ করেনি। অ'ভিযোগ করলে আমর'া প্রয়ো’জনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।