গু’লিতে নি’হত যুবকের লা’শ ফেরত দিলো বিএসএফ, ভারতে হয়েছে ময়নাতদন্ত

জামালপুরের বকশীগঞ্জের কাছে ভারতের ফুরাংপাড়া এলাকায় গু'লিতে নি'হত সহিজল ওরফে (শিক্কু মিয়া) (৪০) নামে এক বাংলাদেশি যুবকের লা'শ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ-বিজিবির কাছে হস্তান্তর করেছে ভারতী সীমা'ন্তরক্ষী বাহিনী-বিএস'এফ।

মঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় বকশীগঞ্জ সীমা'ন্তের কামালপুর স্থলবন্দর পয়েন্ট দিয়ে লা'শটি হস্তান্তর করা হয়। ভারত-বাংলাদেশের ১০৮৮-৮৯ নম্বর সীমানা পিলারের মাঝামাঝি ফুরাংপাড়া এলাকায় লা'শটি পড়ে ছিল।

নি'হত শিক্কু মিয়া বকশীগঞ্জের কামালপুর ইউনিয়নের লাউচাপড়া গ্রামের ফারাজ উদ্দিনের ছেলে। রবিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) রাত থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন। সোমবার সকালে ফুরাংপাড়া এলাকায় তার লা'শ পাওয়া যায়।

এ নিয়ে মঙ্গলবার দুপুরে বিএস'এফের সঙ্গে বিজিবির এক পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। প্রথমে নি'হত শিক্কু মিয়া বাংলাদেশি হিসেবে শনাক্ত না হওয়ায় তার লা'শটি বিএস'এফ নিয়ে যায় এবং ময়নাতদ'ন্ত করে। পরে বিজিবির কাছে ছবি দেখে শিক্কু মিয়ার স্ত্রী মলিদা বেগম লা'শটি তার স্বামীর বলে শনাক্ত করেন। পরে ব্যাটালিয়ন পর্যায়ে পতাকা বৈঠক করে (আলোচনা) লা'শ ফেরত দিতে রাজি হয় বিএস'এফ।

লা'শ হস্তান্তরের সময় ভারতের পক্ষে ২৮ বিএস'এফ ব্যাটালিয়ন সহকারী কমান্ডার পি ডলি এবং বাংলাদেশের পক্ষে বিজিবির সুবেদার আজমত আলী নেতৃত্ব দেন।

এ ব্যাপারে বকশীগঞ্জ থা'নার ভারপ্রা'প্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম সম্রাট জানান, লা'শটি প্রথমে অ'জ্ঞাতনামা ছিল। ভারতে তার ময়নাতদ'ন্ত সম্পন্ন হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে লা'শটি আমর'া গ্রহণ করেছি। এরপর শিক্কু মিয়ার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ব্যাপারে থা'নায় কোনও মাম'লা হয়নি।