ইসলামের প্রতি ভালোবাসা থেকে মুসলিম হলেন পূজা রানী

ফেনীর দাগনভূঞা উপজে’লায় পূজা রানী দাস নামের এক নারী ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন। ধর্ম বদলের পর তার নাম রাখা হয়েছে মোসাম্মৎ রাইসা রিপন। তিনি উপজে’লার জগতপুর গ্রামের সুনীল চন্দ্র দাস ও বিউটি রানী দাসের মেয়ে।

মোসাম্মৎ রাইসা রিপন ঠাকুরগাঁও নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে এফিডেভিটে উল্লেখ করেন, ‘আমি ধর্মীয় প্রতিজ্ঞা পূর্বক ঘোষণা করছি যে, আমি প্রা'প্ত বয়স্ক সাবালক নারী।

আমা'র নিজের ভবি'ষ্যৎ জীবন সম্পর্কে ভালো-মন্দ বোঝার যথে'ষ্ট জ্ঞান আমা'র আছে, আমা'র জ্ঞান ও বিশ্বা'স মতে ইসলাম সত্য। সনাতন হিন্দু ধর্মের আচার, অনুষ্ঠান, রীতিনীতি আমা'র কাছে ভালো লাগে না।

পাশাপাশি ইসলাম ধর্মের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে জীবনযাপন রীতিনীতি সামাজিক জীবন আমা'র কাছে ভালো লাগে।সেই হিসেবে আমি ইসলাম ধর্মের প্রতি আকৃ'ষ্ট হয়ে পড়ি এবং ইসলাম একটি পূর্ণাঙ্গ জীবনবিধান মর'্মে ইসলাম ধর্ম গ্রহণের সি'দ্ধান্ত গ্রহণ করি। এটা আমা'র জ্ঞান ও বিশ্বা'স মতে সত্য।’

তিনি আরও উল্লেখ করেন, ‘আমি প্রতিজ্ঞা পূর্বক আরও ঘোষণা করছি যে, আমি ইসলাম ধর্ম গ্রহণের সি'দ্ধান্তের পর স্থানীয় মৌলভী সাহেবের মাধ্যমে শিক্ষা নিয়ে মুখে কলেমা তাইয়েবা পাঠ করে এক আল্লাহকে স্বীকার করে ও অন্তরে বিশ্বা'স স্থাপন করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছি।

আমি আমা'র নাম পূজা রানী দাস 'ত্যাগ করে ইসলাম ধর্মের নতুন নাম মোসাম্মেদ রাইসা রিপন গ্রহণ করেছি। এখানে আমি সর্বত্র মুসলমান হিসেবে মোহাম্ম'দ রাইসা রিপন নামে পরিচিত হব এবং আমা'র যাব'তীয় কাগজপত্র নাম পরিবর্তন করেছি।’