প্রকাশ‍্য রাস্তায় স্বামী-স্ত্রীকে কু”পিয়ে হ”ত্যা, ভিডিও ধারণে ব্যস্ত মানুষ

ব্যস্ত সড়কে গাড়ি থেকে নামিয়ে আইনজীবী দ’ম্প’তিকে কু'পিয়ে হ'ত্যা করেছে দুই হাম'লাকারী। একের পর ছু'রিকাঘা'ত করা হচ্ছে স্বামীকে। তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েছেন। শরীর থেকে বের হচ্ছে রক্ত। অন্যদিকে গাড়ির দরজায় ঝুলছে স্ত্রীর দেহ। আর এই খু'নের দৃশ্য ভিডিও করেছেন সেখানে থাকা কয়েকজন ব্যক্তি। ভারতের তেলেঙ্গনার মন্থনি ও পে’ড্ডাপ’ল্লী শহরের মাঝে সড়কে এমন খু’’নের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এরপর নড়ে’চড়ে বসে পুলিশ। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১০ জনকে আট'ক করা হয়েছে। তবে ঘটনার মূ’লহো’তাকে খোঁজা হচ্ছে।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, স্বামী গট্টু ভমন রাও এবং স্ত্রী পি’ভি ন’গা’মণি। দু’জনেই তেলেঙ্গনা হা’ইকো’র্টের আইনজীবী। তাদের জনসম্মুখে কু'পিয়ে হ'ত্যা করা হলেও এগিয়ে আসেননি কেউ। কারণ সবাই ব্যস্ত ছিলেন ঘটনাটি ভিডিও রেকর্ড করতে।

ভিডিওতে দেখা গেছে, ব্যস্ত সড়কে হঠাৎই উ’ল্টো’দিক দিয়ে আইনজীবী স্বামী-স্ত্রীর গাড়ির সামনে এসে দাঁ’ড়ায় কালো রঙের একটি গাড়ি। সেখান থেকে দুইজন ব্যক্তি বেরিয়ে টেনে হিঁ’চড়ে নামায় স্বামী-স্ত্রীকে ৷ তারপর ধা'রালো অ'স্ত্র দিয়ে একের পর এক কো'পাতে থাকে তাদের। কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে সবার চোখের সামনে দিয়ে গাড়ি নিয়ে বেরিয়ে যান হা’ম'লাকা’রীরা।

একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, হাম'লাকারী বারবার বুকে ছু'রিকাঘা'ত করছে গট্টু ভমনের। গাড়ির ঠিক পাশে একটি বাস কিছুক্ষণের জন্য গতি নি’য়’ন্ত্রণ করে, হর্ন বাজাতে থাকে। এছাড়াও পাশে থাকা এক যুবক বাইক থামিয়ে দেখতে থাকেন গোটা ঘটনা। এরপর সকলেই সরে যান এলাকা থেকে।

অন্য একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, মা'রাত্মকভাবে জ'খম হন স্ত্রী নগামণি, গাড়ির দুই সিটের মাঝে আট'কে রয়েছেন। আরও একটি ভিডিও সামনে এসেছে, যাতে দেখা গেছে, ভামন রাও রাস্তায় পড়ে, রক্ত চারিদিকে গড়িয়ে যাচ্ছে। এর মধ্যেও তিনি কথা বলার চে'ষ্টা করছেন। নিজের পরিচয় জানাচ্ছেন এবং একই সঙ্গে যে তার বুকে ছু'রিকাঘা'ত করেছেন তার নামও উল্লেখ করছেন। হাম'লাকারীর নাম কু’ন্তি শ্রী’নিবাস, তেলেঙ্গনা রা'ষ্ট্র সমিতির সদস্য বলে জানা গেছে।

খবরে বলা হয়েছে, আইনজীবী দম্পতির আগে থেকেই হাম'লার আশ'ঙ্কা করেছেন। এরপরই হা’ম'লা’কারীদের হাতে তাদের প্রাণ দিতে হল তাদের। এদিকে প্রকাশ্যে এমন হাম'লার ঘটনায় রাজ্যের আইনজীবীদের মধ্যে অ'সন্তোষ তৈরি হয়েছে। পাশাপাশি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বার কাউন্সিল। সংস্থাটির পক্ষ থেকে অ'ভি’যু’ক্তের দ্রুত শা’স্তি নি’শ্চত করার দাবি করা হয়েছে।

সূত্র: জি নিউজ ও নিউজ এইট্টিন।