শিগগিরই আরেকটা যু’দ্ধে জড়াতে চায় না হা’মাস-ইস’রাইল

১১ দিনের যুদ্ধ শেষে গত ২১ মে ইসরাইল ও ফি’লিস্তি’নের প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস যু’দ্ধবিরতিতে সম্মত হয়। যুদ্ধ বিরতি সত্ত্বেও গত দুই সপ্তাহ ধরে জেরুজা’লেমে টানটান উত্তে’জনা বিরাজ করছে। এই উ’ত্তে’জনার অন্যতম প্রধান কারণ জে’রুজা’লেম দিবস উপলক্ষ্যে ইসরাইলের পতাকা মিছিল বের করতে চাওয়া।

দিবসটি ইস’রাইলদের একটি বার্ষিকঅনুষ্ঠান। ১৯৬৭ সালের মধ্যপ্রাচ্য যুদ্ধে পূর্ব জেরুজা’লেম দখলের স্মরণে দিনটিকে উদযাপন করে তারা। এই বছরের অনুষ্ঠান গত বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু হামা’সসহ ফিলি’স্তিনিদের প্রতিবাদের মুখে ইস’রায়েলি পুলিশ নিরাপত্তার অজুহাতে অনুষ্ঠানটির অনুমতি বাতিল করে। কিন্তু গত রোববার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়া ইস’রাইলের নাফতালি বেনেট সরকার ক্ষমতা গ্রহণ করেই বিতর্কিত এই পতাকা মিছিলের অনুমতি দেয়।

এরপর মঙ্গলবার কট্টরপ’ন্থি ইহুদিরা কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে জেরুজা’লেমের পুরনো শহরে ওই পতাকা মিছিল করে। সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশিত কিছু ভিডিওতে ইস’রায়েলি বিক্ষো’ভকারীরা স্থানীয় ফিলি’স্তিনিদের উদ্দেশ্যে ‘আরবদের মৃত্যু হোক’ বলে শ্লোগান দিতে দেখা যায়। এরপর বুধবার ইস’রাইল ফের ফিলি’স্তিনের গাজায় হামা’সের ফাঁ’কা স্থাপনায় হামলা চালায়। ইস’রাইল ডিফেন্স ফোর্স (আইডিএফ) জানায়, গাজা থেকে নিক্ষেপ করা আ’গ্নে’য় বেলুনের কারণেই তারা হামলা চালিয়েছেন।

দেশটির দমকল বাহিনী জানিয়েছে, দক্ষিণ ইস’রায়েলের বিভিন্ন এলাকায় অন্তত ২০টি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। সাম্প্রতিক উত্তে’জনা সামনে রেখে হামাসের সম্ভাব্য রকেট হামলা ঠেকাতে মঙ্গলবার রাজধানীতে আয়রন ডোম মোতায়েন করে ইস’রাইলি বাহিনী।

এছাড়া ইহুদি জাতীয়তাবাদীদের মিছিলে হাজার হাজার পুলিশ নিরাপত্তা দেয়। মিছিলে সংঘর্ষ এবং বেশকিছু গ্রেফতারের ঘটনা থাকলেও দিনটি তুলনামূলক শান্ত ছিল। ইস’রাইলি বাহিনী যে আয়রন ডোম মোতায়েন করে সেটা নিরবই থাকে।

কারণ, হামাসের দিক থেকে কোনো রকেট হামলা হয়নি। ফলে ইস’রাইলও গাজায় বড় কোনো ধরনের হামলা চালায়নি। অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে ইসরাইল এবং হামাস শিগগিরই আরেকটা যুদ্ধে জড়াতে চাচ্ছে না।

হামাসের পক্ষ থেকে যুদ্ধে জড়াতে না চাওয়ার কারণ হলো, এই মুহূর্তে তাদের আরেকটি যুদ্ধ করার সক্ষমতা নেই। তাছাড়া সর্বশেষ যু’দ্ধবিরতিতে মধ্যস্থতা করেছে মিশর। যুদ্ধ’বিধ্ব’স্ত গাজায় মিসরীদের মাধ্যমে সহায়তা কার্যক্রম চলছে। সুতরাং এই মুহূর্তে ইস’রাইলে রকেট হামলা করে মিসরকে রাগাতে চাইবে না হামাস। অন্যদিকে, ইসরাইল যুদ্ধ জড়াতে চাইবে না কারণ, দেশটিতে গত রোববার নতুন সরকার গঠিত হয়েছে।