কলেজের গেট বন্ধ, শ্রদ্ধা জানাতে না পেরে কাঁদলেন ভাষাসৈনিক

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে জাতীয় শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসেও কলেজের ফটক বন্ধ থাকায় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাতে পারেননি ভাষাসৈনিক শাহাদৎ হোসেন (৯০)।

রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) সকালে উপজে’লার আঠারবাড়ি ডিগ্রি কলেজের ফটকে প্রায় দুই ঘণ্টা তিনি দাঁড়িয়ে থাকলেও নিরাপ'ত্তা প্রহরী তাকে ভেতরে ঢুকতে দেয়নি। এসময় তিনি কেঁদে ফেলেন। পরে শ্রদ্ধা না জানিয়েই সেখান থেকে ফিরে যান তিনি।

জানা গেছে, প্রতি বছর জাতীয় শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে আঠারবাড়ি ডিগ্রি কলেজ শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়ে আসছেন ভাষাসৈনিক শাহাদৎ হোসেন। রোববারও তিনি সেখানে শ্রদ্ধা জানাতে আসেন। তবে কলেজের ফটক বন্ধ করে রাখা হয়। ভেতরে নিরাপ'ত্তা প্রহরী থাকলেও তিনি ফটক খুলে দেননি। পরে স্থানীয়রা ফটকের সামনেই কয়েকটি ইট বিছিয়ে দেন। সেখানে ফুলের ডালাগুলো রেখে শ্রদ্ধা জানান ভাষাসৈনিক শাহাদৎ হোসেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কলেজের ফটক খোলার দায়িত্বে ছিলেন নিরাপ'ত্তা প্রহরী আবুল কাশেম। ঘটনার সময় কাশেম কলেজের ভেতরে অবস্থান করলেও শহীদ মিনারে প্রবেশ করার জন্য ফটক খোলেননি। নিরাপ'ত্তা প্রহরী আবুল কাশেম দাবি করেন, ‘আমি বুঝতে পারিনি। আমার কাছে ছাড়াও তো অনেকের কাছে চাবি আছে।’

জানতে চাইলে আঠারবাড়ি ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ অজয় কিশোর রায় চৌধুরী বলেন, ‘আমি অ'সুস্থ থাকায় ছুটিতে আছি। জাতীয় দিবস পালনের জন্য যে কমিটি রয়েছে, তার আহ্বায়ক বাংলা বিভাগের সহীদুর রহমান। দায়িত্ব তারই পালন করার কথা ছিল।’

এ বিষয়ে সহীদুর রহমান বলেন, ‘আমার এক আত্মীয় মা'রা গেছেন। তাই আমি হবিগঞ্জে আছি।’ তবে তাকে কলেজ থেকে দিবস পালনের কোনো দায়িত্ব দেয়া হয়নি বলে দাবি করেন তিনি।