বাংলাদেশে প্রবেশ করে মসজিদ নির্মাণে বিএসএফের বাধা, ছাড় দিতে নারাজ বিজিবি

সিলেটের বিয়ানীবাজারের গজুকা’টা সীমা'ন্তে একটি প্রাচীন ম’সজিদ পুনর্নির্মাণ কাজে ভা’রতীয় সীমা'ন্ত রক্ষাকারী বাহিনী বিএস'এফের বাধার অ’ভিযোগ পাওয়া গেছে। এনিয়ে সোমবার (২২ মা’র্চ) রাতে সীমা'ন্ত এলাকায় মৃ'দু উত্তে’জনা দেখা দেয়।

এ ঘটনায় সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজে’লার গজুকা’টা সীমা'ন্ত এলাকায় অনেক উত্তে’জনা বিরাজ করছে। এ বি'ষয়ে ছাড় দিতে নারাজ বাংলাদেশের সীমা'ন্তরক্ষী বাহিনী (বিজিবি)। ইতিমধ্যে বিএস'এফ সীমা'ন্ত এলাকায় ব্যাংকার খনন করে মহড়া দিলে পাল্টা প্রস্তুতি নিয়েছে বিজিবি।

এ ঘটনায় এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। আতঙ্কিত অনেকে ইতোমধ্যে পরিবার নিয়ে বাড়ী ছেড়ে অন্যত্র অবস্থান নিয়েছেন।

জানা যায়, বিয়ানীবাজার উপজে’লার গজুকা’টা সীমা এলাকার ১৩৫৭নং পিলারের ভিতরে বাংলাদেশ অংশে গজুকা’টা গ্রামের কেন্দ্রীয় জামে ম’সজিদের ২শ’ বছরের পুরনো পাকা ভবনটি ঝুঁ’কিপূর্ণ হওয়ায় এলাকাবাসী পুনর্নির্মাণের উদ্যোগ নেন।

দুবাগ ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য আফতাব উদ্দিন বলেন, ২০১৮ সালে ম’সজিদ পুনর্নির্মাণের সিদ্ধান্ত গ্রামবাসী নেওয়ার পর তারা বিজিবি’র সহায়তা চান। তৎকালীন বিজিবি-৩২ ব্যাটলিয়ানের কমান্ডার বিএস'এফ’র কমান্ডারের সাথে বৈঠক করেন।

বৈঠকে ম’সজিদ নির্মাণের সিদ্ধান্ত হলে তারা নির্মাণ কাজ শুরু করেন। কিন্তু নির্মাণ কাজের নিচ অংশের পিলারসহ আনুষঙ্গিক কাজ শেষে ছাদ ঢালাইয়ের জন্য প্রস্তুতির এক পর্যায়ে বিএস'এফ সরাসরি বাংলাদেশ সীমা'ন্তে প্রবেশ করে ম’সজিদ নির্মাণ কাজে বাধা দেয়।

এর ৩ বছর পর গত স'প্ত াহে বিজিবি-৫২’র সাথে বিএস'এফ’র বৈঠকে ম’সজিদটি পুনর্নির্মাণের বি'ষয়ে আলোচনা হয় এবং তা পুনর্নির্মাণ করতে বিএস'এফ বাধা প্রদান করবে না বলে আশ্বস্ত করে। এতে ম’সজিদ নির্মাণের কাজ ফের শুরু করলে শনিবার 'বিকেলে বিএস'এফ তাতে বাধা প্রদান করে।

সংশ্লি'ষ্ট সূত্র জানায়, এ নিয়ে বিজিবি’র পক্ষ থেকে পতাকা বৈঠকের আহবান জানালেও বিএস'এফ তাতে সায় দেয়নি।

মঙ্গলবার বিজিবি ৫২ ব্যাটালিয়নের কমান্ডিং অফিসার লে. কর্নেল মো. শাহ আলম সিদ্দিকী’ জানিয়েছেন, ভা’রতীয় বাহিনী জিরো লাইনের ১৫০ গজের ভেতরে প্রবেশ করে কোন ধরনের বাধা প্রদান করতে পারে না। তারা সীমা'ন্ত আইন ল'ঙ্ঘন করে ২শ বছরের পুরনো ম’সজিদ পুনর্নির্মাণে বাধা প্রদান করেছে। ম’সজিদের ই’মাম হাফিজ বিলাল আহম’দ জানান, বিএস'এফ এর বাধার পর থেকে নির্মাণ কাজ বন্ধ রয়েছে।

দুবাগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম বলেন, ২শ’ বছরের প্রাচীন এই ম’সজিদ নির্মাণ কাজে আমা'দের সহযোগিতা রয়েছে। বিএস'এফ ম’সজিদ নির্মাণ কাজে বাধা প্রদান ও নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়ায় মানুষের মধ্যে ক্ষো'ভ বিরাজ করছে।

বিজিবি ৫২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. শাহ আলম সিদ্দিকি জানিয়েছেন, ভা’রতীয় বাহিনী জিরো লাইনের ১৫০ গজের ভেতরে প্রবেশ করে কোন ধরণের বাঁ’ধা প্রদান করতে পারে না। তারা সীমা'ন্ত আইন ল'ঙ্ঘন করে ২শ বছরের পুরনো ম’সজিদ পুনঃনির্মাণের বাঁ’ধা প্রদান করেছে। বিএস'এফ এখানে বাঁ’ধা দিয়ে অন্যায় করছে।