মেয়ে বলে পিছিয়ে নেই, মাত্র 30 হাজার টাকা নিয়ে ব্যবসা শুরু, আজ বছরে 60 লাখ টাকা ইনকাম

শুধুমাত্র প্রেমে ঝুঁকি নিলেই হয় না মাঝে মাঝে নিজের জীবনের স্বপ্নকে বাস্তবায়িত করার জন্য ঝুঁকি নিতে হয়। আজ আমরা আপনাকে এমন একজনের গল্প করতে যাচ্ছি যিনি নিজে ঝুঁকি নিয়ে জীবনের স্বপ্নগুলো কে বাস্তবায়িত করেছেন। তিনি হলেন উমং শ্রীধর। আসুন জেনে নিই।

মধ্যপ্রদেশের ভূপালে বসবাসকারী শ্রীধর গত বছর একটি ব্যবসায়িক ম্যাগাজিন ফোবস এ নিজের জায়গা করে নিয়েছেন। শুধু তাই নয় শ্রীধর কে ভারতীয় সামাজিক উদ্যোক্তাদের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। তবে এই পর্যায়ে পৌঁছাতে শ্রীধর কঠোর পরিশ্রম করেছিলেন এবং ঝুঁকি নিয়ে ছিলেন।

শ্রীধর মাত্র 30 হাজার টাকা দিয়ে একটি সংস্থা চালু করেছিলেন। যা শীঘ্রই একটি ব্র্যান্ডে পরিণত হয়েছিল। এটি মেইন অফিস ভোপাল এই। এই সব স্তরের জন্য অনেকেই কাজ পেয়েছেন। এই সংস্থাটির নাম হল খাদিজি। শ্রীধর এটি শুরু করার আগে কাপড় সম্পর্কে অনেক গবেষণা করেছিলেন।

শ্রীধর তাঁতের কাপড় এবং খাদি কাপড় তৈরি করেন। শ্রীধর মূলত মধ্যপ্রদেশের দামোহো জেলার বাসিন্দা কিন্তু কাজের সূত্রে তাকে ভোপালে থাকতে হয়।

এই সংস্থাটি খুচরো বিক্রি এবং পাইকারি বিক্রি করে। এই সংস্থাটি লকডাউন এর সময় দু লক্ষেরও বেশি মাক্স তৈরি করেছিল বিতরণের জন্য। লকডাউন এর সময় এই কাজের জন্য 50 জন মহিলা কর্মসংস্থান পেয়েছিলেন। যার কারণে তাদের ঘর চালাতে অসুবিধা হয়নি।

শ্রীধর এর মত যদি সবাই ঝুঁকি নিয়ে একটি ছোট্ট প্রচেষ্টা করে তাহলে অনেকে হয়তো কর্মসংস্থান পেতে পারে। এই দেশে দারিদ্র্য এবং ক্ষুধার সমাধান আছে কিন্তু তার জন্য ঝুঁকি নিতে রাজি নয়।।