ইন্জিনিয়ার মেয়ে করোনায় হলেন সফল ফুসকা ব্যবসায়ী

এই সেই মেয়ে এই সেই সফল ব্যবসায়ী।তবে শুরুটা এত মসৃণ ছিল না। ইন্জিনিয়ার মেয়ে অথচ করোনার প্রকোপ তাকে করেছিলো দিশেহারা দাদার বেতনের পরিমাণটাও যখন কমে গেলে তখন চোখের সামনে অবলম্বন হয়ে দাঁড়ালো বাবার দশবছর আগের বন্ধ থাকা মুদিখানার দোকান।

নতুন কিছুর চেষ্টা তাকে প্রতিনিয়ত তাড়া করতো। আশেপাশের মানুষের ছি চিৎকার,নিজের B.tech হবার স্বপ্ন।সব কিছুকে আগলে নেমে পড়লো জীবনযুদ্ধে।অনেকের কাছে তার পরিচয় সে ফুচকাওয়ালা কিন্তু নিজের কাছে সে একজন সফল ব্যবসায়ী।

জীবন থেকে পাওয়া দুর্যোগ তাকে করেছে স্বাবলম্বী দিয়েছে স্বীকৃতি।

মেয়েটার আজ শক্তপোক্ত পরিচয় তৈরি হয়েছে অন্য দশটা মেয়ের অনুপ্রেরণা হয়েছে নিজের চেষ্টায়।