‘প্রাণ ফেরার’ আশায় ভেলায় ভাসানো হলো কিশোরীর লাশ!

সাপের কামড়ে কিশোরীর মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু তার সৎকার না করে ভেলায় চাপিয়ে লাশ ভাসানো হলো নদীতে। পরিবারের আশা– এমনটি করলে সে প্রাণ ফিরে পাবে!

সম্প্রতি ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের সুন্দরবনের কালীদাসপুর গ্রামে। এ ঘটনা কেন্দ্র করে ওই এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রের বরাতে ভারতীয় গণমাধ্যম জিনিউজ জানিয়েছে, সুন্দরবন কোস্টাল থানার মোল্লারখালি অঞ্চলের প্রত্যন্ত গ্রাম কালীদাসপুর। পুরো গ্রামটাই কার্যত নদীবেষ্টিত।

প্রতিদিনের মতোই রাতে মেয়ে পূজাকে সঙ্গে নিয়ে শুয়ে ছিলেন দীপক মৃধা। ভোরের দিকে আচমকা প্রচণ্ড যন্ত্রণায় কেঁদে ওঠে তার ১০ বছর বয়সি মেয়ে।

পরিবারের সবাই বুঝতে পারেন, সাপে কামড় দিয়েছে পূজাকে। এর পর তাকে নিয়ে যাওয়া হয় স্থানীয় হাসপাতালে। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। হাসপাতালে পূজাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

এর পর মেয়ের লাশ নিয়ে বাড়ি ফেরেন পরিবারের লোকেরা। কিন্তু সৎকার করার পরিবর্তে ‘প্রাণ ফেরার’ আশায় ভেলায় চাপিয়ে ওই নাবালিকার মরদেহটি ভাসিয়ে দেওয়া হয় নদীতে!

গ্রামের লোকজনই কলাগাছ কেটে ভেলা তৈরি করে দেন। ঘটনাটি জানাজানির পর চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। এর পর তদন্তে নামে পুলিশ।